জাবি প্রতিনিধি:জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক মেমে প্রচার করায়  “JU Days” নামক একটি পেজের এডমিনের পরিচয়দাতাকে  পুরষ্কার প্রদানের ঘোষণা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ( বঙ্গবন্ধু হল ইউনিট ) ছাত্রলীগ নেতা সম্রাট দেব চৌধুরী।
গতকাল (০৮ মে, ২০২০)  ‘JU Days’ নামক পেইজটি থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কয়েকটি ব্যাঙ্গান্তক মেম পোস্ট করা হয়। পরে ঐ পোস্টটি ছাত্রলীগ নেতা সম্রাট দেব চৌধুরীর নজরে আসলে তিনি ঐ পেইজের এডমিনের পরিচয়দাতাকে ৫০০০ টাকা পুরষ্কার দেয়ার ঘোষণা দেন নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে।
এ প্রসঙ্গে সম্রাট দেব চৌধুরীর  সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন ” আমরা দীর্ঘদিন ধরে লক্ষ করছিলাম এই পেইজটি সহ আরো কয়েকটি পেজ নিয়মিতভাবে সরকারবিরোধী বিভিন্ন বিভ্রান্তিকর  পোস্ট এবং অপপ্রচার করে আসছে। নিকট অতীতের ভিসিবিরোধী আন্দোলনের সময় থেকে এদের সক্রিয়তা লক্ষ করা গেছে। এছাড়াও আমরা জেনেছি যে এই পেইজটি নিজ সাইবার পরিচয়ের স্থলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইবার পরিচয় ব্যবহার করেছে, যা অত্যন্ত গর্হিত সাইবার অপরাধ। সম্প্রতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে ব্যাঙ্গ করে করা এই পেজের একটি মেমে আমাদের চোখে পরে। এটি আমাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণের সৃষ্টি করেছে।  তাই আমি এ ধরণের ঘোষণা দিয়েছি। এডমিনের পরিচয় পেলে তা পুলিশের কাছে প্রদান করার জন্যেই এই ঘোষণা।”
 এছাড়াও তিনি জানান, এ প্রসঙ্গে আমরা পুলিশের সাইবার ক্রাইম সেলকে অবহিত করেছি। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপসম্পাদক রাকিবুল হাসান শাওন এ ব্যাপারে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
পাঠকের সুবিধার্থে নীচে তার পোস্টটি হুবুহু দেওয়া হলোঃ
“JU Days”  নামক এই পেজটির এডমিনের (পেজটির মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবমাননা করায়) পরিচয় প্রদানকারী ব্যক্তিকে ৫০০০ টাকা অর্ঘ্য প্রদান করার ঘোষণা দিচ্ছি আমি সম্রাট দেব চৌধুরী।
সর্বপ্রথম আমার এই পেজের এডমিনের প্রতি আহবান থাকবে যাতে তিনি নিজ পরিচয় প্রকাশপূর্বক নিজের কাজের জন্যে ক্ষমাপ্রার্থনা করেন অথবা নিজের কাজের পক্ষে তার ব্যাখা প্রদান করে যৌক্তিক আলোচনার সাহসিকতা প্রদর্শন করেন। নচেৎ তার কৃৎ এই ন্যাক্কারজনক অপরাধের জন্যে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে অনতিবিলম্বে।
 উল্লেখ্য যে এই পেজটি নিকট অতীতে সংঘটিত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিবিরোধী আন্দোলনের সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তাল পরিস্থিতির সুযোগ গ্রহণের উদ্দেশ্যে খোলা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওই সময় থেকেই এই পেজের সক্রিয়তা লক্ষ করা যায়, এবং পেজটি নিয়মিত ভাবে অশ্লীল, আপত্তিকর ও জাতীয় ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী বিভিন্ন পোস্ট ও মেমে প্রকাশ করতে থাকে। মাঝাখানে বেশ কিছুদিন পেজটি নিষ্ক্রিয় থাকলেও বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে এটি আবার নোংরা ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক পোস্টের প্রচার শুরু করে।
এবারে বিষয়টি প্রথম লক্ষ করে ৪৬তম আবর্তনের শিক্ষার্থী এবং বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী আসিফ রেহমান খান। তার ইতিবাচক ভূমিকার কারণে বিষয়টি দ্রুত সকলের দৃষ্টিগোচর হয়, এবং আমি অত্যন্ত আনন্দের সাথে লক্ষ করলাম এর প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের অসংখ্য জুনিয়র কর্মী জাতির পিতার অবমাননাকে নিজের উপর আঘাত জ্ঞানেই এ ব্যাপারে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে। আমাদের যাদের ক্যাম্পাস ছাড়ার সময় হয়ে এসেছে তারা এ ধরনের সচেতনতায় আশ্বস্ত হই। জুনিয়রদের এই উদ্দীপনার প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন থাকবে এই নিশ্চয়তা আমরা নিশ্চয় দিতে পারি।
আমি এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করছি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের অন্যতম আস্থাভাজন নেতৃত্ব ও
বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়াদির দায়িত্বে থাকা প্রিয় অগ্রজদ্বয় অভিজিৎ নন্দি  দাদা ও রাকিবুল হাসান শাওন  ভাইয়ের।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এই পেজটি নিজ সাইবার পরিচয়ের স্থলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার অফিসের সাইবার পরিচয় ব্যবহার করেছে বলে জানা গেছে। আমি আশা করবো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এ ব্যাপারে সুষ্ঠু পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। আমি এ প্রসঙ্গে প্রিয় প্রোক্টর স্যার ফিরোজ-উল-হাসান স্যারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *