কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: উদিবাড়ি কুষ্টিয়া শহরতলিতে শিশু বাচ্চাটির সুন্নতে খৎনা করার সময় হাজাম ফুরকান আলী খলিফা (৭০)  শিশুটির লিঙ্গ দুইটুকরা করে ফেলেছেন । আহত শিশুটি আখতার হুসেনের ছেলে । উদিবাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী সে । শিশু টি কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন । ইউরোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডঃ ওহিদুল আলম বলেন, শিশু সন্তানের লিঙ্গ দুই তৃতীয়াংশ কেটে ফেলেছে, সাদিকের লিঙ্গের জন্য প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে । জরুরি শল্য চিকিত্সা বিভাগে শিশুর রক্তপাত বন্ধে প্রয়োজনীয় সার্জারি সরবরাহ করছে । যদিও শিশুটি বাঁচানোর সকল বিষয় দেখা হচ্ছে, পরে কতটা স্বাভাবিক হবে তা বলা যায় না ।

সাদিকের বাবা আখতার সাংবাদিকদের জানান, বৃহস্পতিবার সকালে বাচ্চাটির খৎনা করতে হাজাম ফুরকান আলী তাঁর বাড়িতে এসেছিলেন। যথারীতি সুন্নত খৎনা করার সময় তিনি পুরুষাঙ্গের মাথা দুটি টুকরো করে ফেলেন, তিনি পরপর দুইবার খুর ছুরি দিয়ে প্যাচ দেন । এতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার সাথে সাথে তিনি সটকে পড়ার চেষ্টা করেন, পরে  জরুরি অবস্থায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে শিশু সাদিককে ভর্তি করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  জানান, সুন্নতে খৎনার সময় শিশুর লিঙ্গ কাটার অভিযোগে হাজমকে  গ্রেপ্তার করেছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *